Image

"যে ভাষার জন্যে

 এমন হন্যে, এমন আকুল হলাম-সে ভাষা তে আমার অধিকার"।

আজ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।আমরা যারা বাংলায় সামান্য লেখালিখি করি তাদের কাছে আজ এক পূণ্যতিথি।আজ এক পুজোর ও উৎসবের দিন।

কিন্তু মাতৃভাষাকে আমরা-মানে এপার বাংলার বাঙালি রা ঠিক কতখানি সম্মান ও সমাদর করতে পেরেছি!চতুর্দিকে বিদেশী ভাষার জয়জয়াকার।আমাদের ছেলেমেয়েরা প্রায় কেউই বাংলা মাধ্যমের ছাত্রছাত্রী নয়।তারা ঠিক কতখানি বাংলা সাহিত্য পড়বে ও বুঝবে!আমাদের পরের প্রজন্ম বাংলা সাহিত্য সেভাবে পড়বেইনা।তারা বাঙালি লেখক বলতে বুঝবে অমিতাভ ঘোষ কে।বাংলা সাহিত্যের এই বিপুল রত্নভান্ডার হয়তো ধুলি ধুসরিত হয়ে পড়ে থাকবে।এই অভিশাপের থেকে বোধহয় আমাদের পরিত্রান নেই।অত্যন্ত আতঙ্কিত হয়ে আমি দেখতে পাচ্ছি আজ থেকে পঞ্চাশ ষাট বছর পরে বাংলাভাষা শুধুই বেঁচে থাকবে বাংলাদেশে আর পশ্চিমবঙ্গে তৈরি হবে ইংরেজী ও বাংলা মেশানো এক জগাখিচুড়ি ভাষা।সেইসময় এক কিশোরী তার দাদুকে হোয়াট্সঅ্যাপ করবে-"কখন থেকে ওয়েটিং ফর ইউ বাট তুমি আমাকে এখনও রেপ করলে না!

দাদু হয়তো ভিরমি খেয়ে পড়তে পড়তে অবশেষে বুঝতে পারবে-রিপ্লাই এর ছোট সংস্করন হল রেপ।

কবীর সুমন বহুদিন আগে লিখেছিলেন -"পুবের ঐ উদ্বোধনে পশ্চিমেরও বোধন হোক/একুশে ফেব্রুয়ারী আমার আলো আমার চোখ"॥